Walton
ads
D Diamond

গাজীপুরে ট্রাক চাপায় পোশাক শ্রমিক নিহত, ৪ ঘণ্টা মহাসড়ক অবরোধ, যানবাহন ভাংচুর

মোফাজ্জল হোসেন, গাজীপুর প্রতিনিধি

শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, দুপুর ২:২৬

Untitled.jpg

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ময়লা ফেলার গাড়ির চাপায় নারী পোশাক শ্রমিক মোসাম্মৎ মনিরা বেগম (৩০) নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় বিভিন্ন পোশাক কারখানার শ্রমিকরা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করেন। উত্তেজিত শ্রমিকেরা বেশ কয়েকটি যানবাহন ভাংচুর করে এবং ময়লা ফেলার গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেন। মহাসড়ক অবরোধের প্রায় ৪ ঘণ্টা পর দুপুর ১২টার দিকে সড়কে যান চলাচল শুরু হয়েছে।



শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল পোনে ৮ টায় মহানগরীর কুনিয়া (বড়বাড়ি) এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি’র) গাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, নারী পোশাক শ্রমিক গাড়ি চাপায় নিহতের ঘটনায় উত্তেজিত শ্রমিকেরা মহাসড়ক অবরোধ করে এবং গাড়ি ভাংচুর করে। পরে তাদের বুঝিয়ে মহাসড়ক থেকে সরানো হয়েছে। এখন মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।



নিহত পোশাক শ্রমিক মোসাম্মৎ মনিরা বেগম শরীয়তপুরের সখিপুর থানার তালিতাকান্দি গ্রামের রুহুল আমিনের স্ত্রী। সে স্থানীয় লিজ কমপ্লেক্স পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন। স্ব-পরিবারে গাজীপুর মহানগরীর তারগাছ এলাকায় ভাড়া থাকতেন। ওই নারী শ্রমিকের লাশ উদ্ধার করে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।



গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি’র) গাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ আলম বলেন, সকাল পোনে ৮টার দিকে গাজীপুর মহানগরের কুনিয়া (বড়বাড়ি) এলাকায় বিভিন্ন কারখানার শ্রমিকেরা অফিসে যাচ্ছিলেন। এসময় মহাসড়ক পার হওয়ার সময় গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ময়লাবাহী ট্রাক এক নারী শ্রমিককে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে আশপাশের বিভিন্ন কারখানার শ্রমিকেরা মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে অবরোধ করেন। উত্তেজিত শ্রমিক ও স্থানীয়রা ইট-পাটকেল ছুড়ে ১০ থেকে ১৫ টি যানবাহনের কাচ ভাংচুর করে সিটি কর্পোরেশনের ময়লার ট্রাকে আগুন ধরিয়ে দেন। এসময় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে জিএমপি পুলিশ ও ট্রাফিক পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে প্রায় ৪ ঘণ্টা শ্রমিকদের বুঝিয়ে দুপুর ১২টার দিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।



টঙ্গী ফায়ার স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আবু মুহাম্মদ সাজেদুল কবীর জোয়ার্দার জানান, উত্তেজিত শ্রমিকেরা মহাসড়কে পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া চলমান থাকায় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নেভানো সম্ভব হয়নি।